ⓘ ভারত শাসন আইন ১৯৩৫. ১৯৩২ খ্রিস্টাব্দের নভেম্বর মাসে লন্ডনে তৃতীয় গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় । কংগ্রেস যথারীতি ওই বৈঠকে যোগদান করেনি । অন্যান্য দল ও সম্প্রদায় ..

                                     

ⓘ ভারত শাসন আইন ১৯৩৫

১৯৩২ খ্রিস্টাব্দের নভেম্বর মাসে লন্ডনে তৃতীয় গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় । কংগ্রেস যথারীতি ওই বৈঠকে যোগদান করেনি । অন্যান্য দল ও সম্প্রদায়ের অনেক কম সংখ্যক প্রতিনিধি এই বৈঠকে যোগদান করেছিলেন । তাঁরা ভবিষ্যৎ শাসনতন্ত্রে কয়েকটি প্রগতিশীল ব্যবস্থা গ্রহণ করতে চাইলে ব্রিটিশ সরকার তা প্রত্যাখ্যান করে । তবে এই বৈঠক এবং পরবর্তী আলোচনা সমূহের ফলশ্রুতি হিসাবে ১৯৩৫ খ্রিস্টাব্দের ভারত শাসন আইন বিধিবদ্ধ হয় । ১৯৩৩ খ্রিস্টাব্দে পার্লামেন্টের উভয় কক্ষের সদস্যদের নিয়ে গঠিত জয়েন্ট সিলেক্ট কমিটির রিপোর্ট, ব্রিটিশ সরকারের প্রকাশিত শ্বেতপত্র বা সরকারি দলিল প্রভৃতির সুপারিশ ও আলোচনার ভিত্তিতে ব্রিটিশ সরকার ১৯৩৫ খ্রিস্টাব্দের ভারত শাসন আইন রচনা করেন । ১৯৩৪ খ্রিস্টাব্দে আইন অমান্য আন্দোলন প্রত্যাহারেপর ১৯৩০ ও ১৯৪০ -এর দশকে ভারতে জাতীয়তাবাদী আন্দোলন দুটি ধারায় চলতে থাকে । একটি কংগ্রেসের নেতৃত্বে জাতীয় আন্দোলন, অপরটি বামপন্থীদের নেতৃত্বে বামপন্থী আন্দোলন । কংগ্রেস নিয়ম তান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা লাভের পক্ষপাতি ছিলেন এবং বামপন্থীরা গণ আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে দেশের শ্রমিক, কৃষক ও সাধারণ মানুষের বিভিন্ন দাবিদাওয়া আদায়ের ব্যাপারে সচেষ্ট ছিলেন । এই পরিস্থিতিতে ব্রিটিশ সরকার ভারতীয়দের সন্তুষ্ট করার জন্য ১৯৩৫ খ্রিস্টাব্দে ভারত শাসন আইন প্রণয়ন করেন ।

ভারত শাসন আইন ১৯৩৫ ছিল ব্রিটিশ সরকার রাজের পরাধীন ভারতের শেষ সংবিধান। এই আইনের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দিক ছিল:
  • এইটি ফলে সমস্ত ভারতীয় প্রাদেশিক রাজ্যগুলি ভারত ফেডারেশনের জন্য যোগ দিল।
  • সরাসরি নির্বাচন প্রথম বারের জন্য উপস্থাপন করা হল। ভোট দেবার অধিকার বৃদ্ধি কর হল।
  • সিন্ধ বোম্বে থেকে আলাদা করা হল। উড়িষ্যা বিহার থেকে আলাদা করা হল। বর্মা ভারত থেকে আলাদা করা হল।
  • এইটি ভারতীয় প্রদেশ স্বায়ত্তশাসন প্রদান করল এবং ভারত শাসন আইন ১৭৮৪ শেষ হল।
                                     

1. যুক্তরাষ্টীয় কাঠামো

ভারত শাসন আইন অনুসারে ভারতে ব্রিটিশশাসিত প্রদেশ, দেশীয় রাজ্য এবং চিফ কমিশনার শাসিত প্রদেশ গুলিকে নিয়ে এক সর্বভারতীয় যুক্তরাষ্ট্র গঠনের ব্যবস্থা করা হয় । যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান পরিচালক হন গভর্নর জেনারেল । গভর্নর জেনারেল তাঁর মনোনীত তিনজন সদস্য নিয়ে একটি পরিষদ গঠন করেন । এই তিন সদস্য বিশিষ্ট পরিষদের সাহায্যে গভর্নর জেনারেল ভারতবর্ষের প্রতিরক্ষা, বৈদেশিক নীতি, খ্রিস্টধর্ম সংক্রান্ত বিষয় পরিচালনা করতেন । অন্যান্য বিষয়গুলি পরিচালনার জন্য একটি মন্ত্রিসভা গঠন করা হয় । মন্ত্রীগণ তাঁদের কাজের জন্য আইনসভার কাছে দায়ী থাকতেন । কয়েকটি বিশেষ ক্ষেত্রে, যেমন দেশে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখা ইত্যাদি ব্যাপার গভর্নর জেনারেল মন্ত্রিসভার পরামর্শ গ্রহণ নাও করতে পারেন । যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভা দুটি পরিষদ নিয়ে গঠিত হবে । উচ্চকক্ষের নাম হবে রাষ্ট্রীয় পরিষদ Council of States এবং নিম্নকক্ষের নাম হবে ব্যবস্থা পরিষদ Federal Assembly । রাষ্ট্রীয় পরিষদ একটি স্থায়ী সংসদ হবে এবং এর এক তৃতীয়াংশ সদস্যের প্রতি তিন বছর অন্তর কার্যকাল শেষ হবে এবং সেই জায়গায় নতুন সদস্য নেওয়া হবে । অবসর গ্রহণকারী সদস্যরা পুনর্নির্বাচিত হতে পারবেন । রাষ্ট্রীয় পরিষদের সদস্য সংখ্যা হবে অনধিক ২৬০ । এঁদের মধ্যে ১৫৬ জন ব্রিটিশ শাসিত ভারত থেকে নির্বাচিত হবেন এবং অনধিক ১০৪ জন দেশীয় রাজ্যের শাসকদের দ্বারা মনোনীত হবেন । নিম্নকক্ষ ব্যবস্থা পরিষদ Federal Assembly পাঁচ বছরের মেয়াদে নির্বাচিত হবে বলে ঠিক হয় । এর সদস্য সংখ্যা হবে অনধিক ৩৭৫ । ব্রিটিশ শাসিত ভারত থেকে ২৫০ জন এবং দেশীয় রাজ্যগুলি থেকে ১২৫ জন সদস্য পরিষদের জন্য নির্বাচিত হবেন ।

                                     
  • ভ রত অব ভক ত ব ল র প রধ নমন ত র র পদ ছ ল ভ রত শ সন আইন এর আওত য এই পদ স ষ ট কর হয বঙ গ য আইন পর ষদ র স থ ন ত র স থ একই সময এট র অবস থ ন
  • হয ছ ল স ল একট নত ন স ব ধ ন গ রহণ র আগ পর যন ত ভ রত শ সন আইন ভ রত র স ব ধ ন ক আইন হ স ব বহ ল ছ ল স ল র জ ন য র ত ক র যকর হওয
  • স ব ধ ন র প রবর তন র সঙ গ সঙ গ প র বপ রচল ত স ল র ভ রত শ সন আইন র অবস ন ঘট দ শ র সর ব চ চ আইন হওয র দর ন, ভ রত সরক র প রবর ত ত প রত ট আইনক স ব ধ ন - অন স র
  • ক ষ ত র আইন অম ন য আন দ লন ব স তবক ষ ত র ক ন গ র ত বপ র ণ অবদ ন র খত প র ন এব স ল র ভ রত শ সন আইন চ ড ন ত পর ণত ল ভ কর এমন অবস থ য আইন অম ন য
  • ফ ব র য র ড উক অফ কনট আন ষ ঠ ন কভ ব এই সভ র উদ ব ধন কর ন স ল র ভ রত শ সন আইন বল বঙ গ য প র দ শ ক আইনসভ ক দ ট কক ষ ব ভক ত কর হয ল জ সল ট ভ
  • গ হ ট উচ চ ন য য লয অসম য গ ৱ হ ট উচ চ ন য য লয স ল র ভ রত শ সন আইন অন য য ম র চ, প রত ষ ঠ ত হয আদ ন ম ছ ল আস ম ও ন গ ল য ন ড
  • অন স থ প রস ত ব ব র ষ ট রপত শ সন প রবর তন র দ ব র এই সভ ভঙ গ কর য য ৷ স ল র আগস ট ব র ট শ স সদ ভ রত সরক র আইন Government of India Act 1935 গ হ ত
  • প রজ তন ত র দ বস প ল ত হয স ল র জ ন য র ত র খ ভ রত শ সন র জন য স ল র ভ রত সরক র আইন র পর বর ত ভ রত য স ব ধ ন ক র যকর হওয র ঘটন ক
  • আইন অন য য স ব ধ ন প রণয ন ও ত ক র যকর হওয র প র ব পর যন ত স ল র ভ রত শ সন আইন অন য য র ষ ট রপর চ লন র ক ষমত পর ষদক প রদ ন কর হয গণপর ষদ
  • জ ল শ স ত হয আসছ উল ল খ য, স ল ভ রত শ সন আইন প শ হল ও স ল র উক ত প র বত য চট টগ র ম শ সন ব ধ - আইন এ অঞ চল অব য হত থ ক য ত অন য জ ল থ ক
  • সকল ম মল র ক ষ ত র সর ব চ চ আদ লত হ স ব ক জ করত থ ক এরপর স ল র ভ রত শ সন আইন বল ফ ড র ল ক র ট অফ ইন ড য গঠ ত হয এখ ন ব ভ ন ন প রদ শ ও